Get Free Genuine License Key Avast Antivirus Home Edition for upto 2038


 

 

 

Get Free Genuine License Key Avast Antivirus Home Edition for upto 2038

http://tricks-collections.com/avast-license-key-activate-avast-free-antivirus-until-2038

Free licence key upto 2038 :

For Avast 4.8 ; Avast 5.0 ; Avast 6.0

———- cut here ———-
W6754380R9978A0910-4TZ59467
———- cut here ———-

Download Avast setup_av_free 6.01203.0  From  Below :

http://www.avast.com/free-antivirus-download

http://avast.en.softonic.com/download

Pen Drive দিয়ে উইন্ডোজ এক্সপি সেটাপ করার পদ্ধতি


Pen Drive  দিয়ে উইন্ডোজ এক্সপি সেটাপ করার পদ্ধতি

যা লাগবেঃ

১। একটি ১ জিবি পরিমান পেন ড্রাইব
২। Flesh Prep Software
৩। Windows XP CD

প্রথমে এখান থেকে flesh prep software টি ডাউনলোড করে নিন। সেটি আনজিব করে নিন।

ফোলডারে ঢুকে flesh prep.cmd খুলুন। পেন ড্রাইব অবশ্যই লাগানো থাকতে হবে।

তারপর পেন ড্রাইবটি ফরমেট করুন। ফরমেট হয়ে গেলে software বন্ধ না করে run menu cmd লিখে এন্টার দিন। (আপনার flesh prep software ফোল্ডারের ভিতরে দেখবেন bootsect folder আছে bootsect.exe নামে একটি ফাইল আছে।)

command prmot মাধ্যমে ফোল্ডারের মধ্যে ঢুকে টাইপ করুন bootsect.exe /nt52 g: (g: হচ্ছে আপনার পেন ড্রাইব যেটি ড্রাইব লেটার থাকবে সেটি)। আপনি যদি সম্পুর্ন ভাবে করতে পারেন তাহলে আপান একটি কনপারমেশন লিখা আসবে bootcode was successfully update on all terget volume.

এর পর সেখান থেকে বের হয়ে যাবেন। তারপর উপরে দেখানো ছবি থেকে ডান পাশের pe to usb টি বন্ধ করলে বাম পাশের টি থাকবে এর পর ১-৪ পর্যন্ত কমান্ডগুলো লক্ষ করুন।

১ নাম্বার দিয়ে উন্ডোজ সিডি পাথ দেখিয়ে দিবেন।
২ নাম্বার দিয়ে একটি “T’ নামে ভার্চূয়েল মেমোরি তৈরী করবেন
৩ নাম্বার দিয়ে আপনার usb dive letter যেটি থাকবে সেটি দিখিয়ে দিবেন।
৪ নম্বার সিলেক্ট করলে সিডি খেকে আপনার পেন ড্রাইবে উন্ডোজ কপি হওয়া শুরু হবে এবং আপনি কপি না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
এর পর যা কমান্ড আসবে সব yes দিয়ে দিবেন।

হয়ে যাবে আপনা bootable windows xp stick.

এর পর bios এ গিয়ে boot from usb করে দিন.তারপর মজা দেখবেন। বি.দ্র. বুট হওয়ার পর ২ নাম্বাটি সিলেক্ট করবেন।


.

Many in one page


Welcome to drsalimalmamun.wordpress.com

Many in one Page

একটা পিসিতে সেটাপের পর কত কিছুই না ইন্সটল করা লাগে ! আবার এগুলোর জন্য কতখানেই না যাওয়া লাগে !কেমন হত যদি মোটামুটি সবকিছুই (প্রয়োজনীয়) একটি মাত্র টপিকেই খুজে পেতেন ?
চলুন সেই ব্যাবস্থাটাই করি আজ।
নিচে ক্যাটাগরী অনুসারে প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারগুলো এবং আরো অন্যান্য কিছু লিংক দেওয়া হলো।সময়ের সাথে সাথে এগুলাও আপডেট হতে থাকবে।

অডিও গান যদি শুনতে চানঃ ধরুন আপনি অডিও গান শুনতে চাচ্ছেন।যদিও আপনার উইন্ডোজে বিল্টইন মিডিয়া প্লেয়ার পাবেন তবুও বেটার পাসফরম্যান্স এবং অন্য অন্য সুবিধার কথা চিন্তা করে অনেকে আবার আলাদাভাবে মিডিয়াপ্লেয়ার ইনস্টল করে।ঠিক তেমনই কয়েকটা প্লেয়ার ডাউনলোড লিংক নিচে দেওয়া হলো।
*** Media Jukebox
*** Songbird (আমার বেশ ভালো লাগে)
*** Winamp
*** Windows Media Player 11 (ভিসতাতে/সেভেনে বিল্ট ইন পাবেন)
*** Zoom Player
(অডিও প্লেয়ার নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)
ভিডিও গানের জন্যঃ আজকাল বিভিন্ন ফরম্যাটের ভিডিও পাওয়া যায়।সব ফরম্যাট আবার আপনার বিল্টইন উইন্ডোজ মিডিয়াপ্লেয়ারে চলবেনা।তার জন্য আপনার ইনস্টল করতে হবে কোডেক।এসব ঝামেলা এড়ানোর জন্যই আপনি নিচের প্লেয়ারগুলো থেকে যেকোন একটা প্লেয়ার ডাউনলোড করে নিতে পারেন।এই প্লেয়ারে অডিও থেকে শুরু করে ভিডিও এবং সব ধরণের মিডিয়া ফরম্যাট সাপোর্ট করবে।
*** Media Player Classic (Klite Codec Included) (রিকমেন্ডেড)
*** VLC Player (রিকমেন্ডেড)
*** Divx Player
*** GOM Player
*** KM Player (সুন্দর ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট পেতে চাইলে)
(ভিডিও প্লেয়ার নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)

অডিও কনভার্টারঃ অডিও গানকে বিভিন্ন ফরম্যাটে কনভার্ট করতে চাইলে বা গানের বিটরেট কমিয়ে অল্প জায়গায় বেশী গান রাখতে চাইলে আপনার দরকার হবে কনভার্টার।
নিচের লিষ্টে পাবেন তেমনই অডিও কনভার্টারসমুহ।
*** Any Audio Converter(রিকমেন্ডেড)
*** AVS Audio Converter
*** Magic Audio Converter
*** Total Audio Converter (রিকমেন্ডেড)
*** Xilisoft Audio Converter
(অডিও কনভার্টার নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)

ভিডিও কনভার্টারঃ আপনার পোর্টেবল ভিডিও প্লেয়ার বা মোবাইল উপযোগী রেজুলেশনের ভিডিও,বড় সািজের ভিডিওকে কমপ্রেস বা এরকম রিলেটেড কোন কিছু করতে চাইলে আপনার দরকার হবে ভিডিও কনভার্টার।নিচের লিষ্ট থেকে খুজে নিন আপনার পছন্দেরটা।
*** Any Video Converter (রিকমেন্ডেড)
*** AVS Video Converter
*** Magic Video Converter
*** Total Video Converter
*** Win Avi Video Converter
*** Xilisoft Video Converter ultimate (রিকমেন্ডেড)
(ভিডিও কনভার্টার নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)

ব্রাউজারঃ ধরুন আপনি আপনার পিসি থেকে ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে চান।ডিফল্ট বা বিল্টইন হিসাবে আপনি ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার পাচ্ছেন কিন্তু অন্যান্য সুবিধা বা জনপ্রিয়তার উপর ভি্ত্তি করে ইদানিং আরো অনেক ব্রাউজার পাওয়া যায়।নিচ থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।
*** Firefox (রিকমেন্ডেড)
*** Google Chorme (রিকমেন্ডেড)
*** Opera
*** Safari
*** Netscape
*** Avant
(ব্রাউজার নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)

ডাউনলোড ম্যানেজারঃ বাজারে (নেটে) আজকাল অনেক ডাউনলোড ম্যানেজার পাওয়া যায়।এগুলা দিয়ে আপনি ব্রাউজারের ডিফল্ট ম্যানেজার থেকে অনেক বেশী স্পিড এবং সহজে ডাউনলোড করতে পারবেন।এই ক্যাটাগরীতে আমার ব্যাক্তিগত পছন্দ আইডিএম।নিচে জনপ্রিয় কিছু ডাউনলোড ম্যানেজার শেয়ার করা হলো !
*** Internet Download Manager (IDM)
*** FlashGet
*** Orbit Downloader
*** Internet Download Accelarator
*** Download Accelerator Plus
(অডিও প্লেয়ার নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)

ডাটা রিকভারীঃ ধরুন ভুলক্রমে আপনার গুরুত্বপূর্ণ একটি ফোল্ডার বা ফাইল ডিলিট করে দিয়েছেন যা পরবর্তীতে রিসাইকেল বিন থেকেও ডিলিট করা হয়েছে।এখন উপায় ? এমন অবস্থায় আপনার দরকার হবে ডাটা রিকভারী সফটওয়্যার। এটা দিয়ে আপনি ডিলিট করা ফাইল থেকে শুরু করে ফরম্যাট হওয়া ড্রাইভের ডাটাও পুনুরুদ্ধার করতে পারবেন।নিচে এমনই কিছু সফট দেওয়া হলো।

*** EASEUS Data Recovery Wizard Professional
*** OnTrack Easy Recovery Professional
*** RStudio 4.5
*** Recover My Files
*** Memory Card Data Recover
(এই ক্যাটাগরীর অন্য কোন সফট নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)

অপারেটিং সিস্টেমঃ এক্সপি/ভিসতা/সেভেন এখন সবার হাতে হাতে।তবুও এসবের ভীড়ে আজকাল অনেকেই মুক্ত অপারেটিং সিস্টেমের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ছে।আপনিও ঘুরে আসুননা একবার লিনাক্সের ভার্সন/ডিস্ট্রো গুলো থেকে! (সংগ্রহ এবং সিলেকশনে শেষপ্রান্তর)

*** Ununtu
*** Linux Mint
*** Fedora
*** Mandriva
*** Open SUSE
(অপারেটিং সিস্টেম  নিয়ে কারো কোন স্ট্রং রিকমেন্ডেশন থাকলে সেটা এই টপিক জানানোর আহবান করা হচ্ছে।)

রেডিওঃ কাজের ফাকে ফাকে যদি অনলাইনে রেডিও শুনতে চান সেটার ব্যবস্থা রয়েছে।যদিও অনেক রেডিও আছে,এদের মধ্য থেকে বাংলা কিছু অনলাইন রেডিও’র লিংক দেওয়া হলো। (সংগ্রহ এবং সিলেকশন করেছেন সামিউল ভাই)
*** রেডিওগুনগুন
*** রেডিও ঢাকা
*** রেডিও তুফান
*** লেমন ২৪.কম
*** রেডিও আড্ডা

অন্যান্য কিছু জিনিসপত্রঃ পিসি চালাতে গেলে টুকটাক আরো অনেক কিছুরই দরকার হয়।নিচে এরকম কিছু লিংক বা সফট দেওয়া হলো।কখনো কখনো কাজে লাগবে।
*** Magic ISO Burner (Full) (আপনি যদি বুটেবল সিডি বা ডাউনলোড করা আইএসও ফরম্যাটের ফাইলটি সিডি বার্ন করতে চান তবে ব্যাবহার করুন ম্যাজিক আইএসও।)
*** Windows Activator (ALL) (আমার দেখা এ পর্যন্ত সেরা এ্যাক্টিভেটর।সব ভার্শনেই কাজ করে)
*** HJ Split নেট থেকে ডাউনলোড করা .001 বা .002 এরকম ফরম্যাটের ফাইলগুলা একসাথে জোড়া লাগানোর জন্য এটি কাজে দেবে)
*** DU Meter (এটি আপনার ব্যান্ডউয়িথের হিসেব রাখবে।আওয়ারলী,ডেইলী,মান্থলী কত ডাউনলোড বা আপলোড করলেন বা টোটাল কি পরিমাণ ইউজ করলেন সেটার হিসাব রাখবে।)
*** Portable Bangla Dictionary (আড়াই মেগাবাইটের চমৎকার একটা বাংলা ডিকশনারী!)
*** Acdsee 10 (ফটোশপ জানেন না কিন্তু পারিবারিক ছবিগুলা এডিটিং করতে চান এরকম ছোটখাট হালকা কাজের জন্য এটি ব্যাবহার করুন)
*** Yahoo Messenger (আমাদের অতিপ্রিয় ইয়াহু ম্যাসেন্জার ডাউনলোড করতে চাইলে এখানে যান)
*** Skype (ডাউনলোডের জন্য ক্লিক করুন)

(কিছু কথাঃ এই টপিকটা অনেক বড় করার ইচ্ছা আছে।আপাতত শুরু করলাম।ধীরে ধীরে সবই যোগ করবো । এখানের মিডিয়াফায়ার লিংকগুলো সব আমার আপলোড সুতরাং হারিয়ে যাওয়ার ভয় নেই।তবুও কোন সমস্যা পেলে দ্রুত জানাবেন। এখানে যেসব সফট আছে সবই সিরিয়াল সহ আর বাদবাকীগুলা ফ্রিওয়্যার)

Special Thanks to

ভবঘুরে

থাকুক তোমার একটু স্মৃতি থাকুক
একলা থাকার খুব দুপুরে
একটি ঘুঘু ডাকুক !

Trips about Fasting of your PC without any Software or Increasing RAM


বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ

আমাদের অনেকের পিসি বিভিন্ন কারণে স্লো হয়ে যায়।এর মধ্যে একটি কারণ হচ্ছে ব়্যামের স্বল্পতা।কারণ আমরা যতক্ষণ কম্পুতে কাজ করি ততক্ষণ রেম এ ঐসকল প্রোগ্রামের ডাটা গুলো জমা রাখে।
পরে বিভিন্ন ক্লিনার দ্বারা ঐ ফাইল গুলো কে মুছে ফেলতে হয়।কিন্তু এখন তার আর কোন দরকার নেই।কারণ কম্পিউটার সেটি নিজে নিজে করবে।
কম্পিউটার বন্ধ করার সময় ভার্চুয়াল মেমোরি হিসেবে কাজ করা পেইজ ফাইল মুছে ফেলে র‌্যামের গতি বাড়ানো যায়।
এ জন্য Start থেকে control panel-এ যান। এখান থেকে Administrative Tools->Local Security Policy->Security Settings->Local Policies->Security Options ঠিকানায় যান।
ডানপাশের Shutdown : Clear virtual memory page file অপশনে ডাবল ক্লিক করুন এবং অপশনটি Enable করে OK দিয়ে বের হয়ে আসুন। এখন কম্পিউটার বন্ধের সময় virtual memory page file স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে যাবে।

Thanks

Have a nice day.